1. admin@dainikbanglarbani24.com : admin :
  2. daliybanglarbani@gmail.com : razmulhuda :
শিরোনাম :
দলিলের ভিত্তিতে জমি কিনেও বসবাস করতে পারছেনা নবগ্রামের : কাশেম আলী dainikbanglarbani24.com বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে নবনিযুক্ত ১১ বিচারপতির শ্রদ্ধা dainikbanglarbani24.com বাসভাড়া : মহানগরীতে প্রতি কিমি ৩৫ পয়সা, দূরপাল্লায় বাড়লো ৪০ পয়সা dainikbanglarbani24.com রাজধানীতে গণপরিবহন সংকট, ভোগান্তি চরমে dainikbanglarbani24.com শেখ কামালের সমাধিতে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের শ্রদ্ধা dainikbanglarbani24.com টিসিবির পণ্য নিয়ে অনিয়ম করলে কঠোর ব্যবস্থা: বাণিজ্যমন্ত্রী dainikbanglarbani24.com শোকের মাসে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন কর্মসূচি dainikbanglarbani24.com বিএনপির হারিকেন মিছিল দেখে মনে হয় তাদের নির্বাচনী প্রতীক বদলে গেল কি না -তথ্যমন্ত্রী dainikbanglarbani24.com নিজেদের নেত্রীকে মুক্ত করতে পারে না আবার সরকার পতন ঘটাবেঃ সেতুমন্ত্রী dainikbanglarbani24.com বলিউডের অভিনেএী শিল্পা শেঠি ঢাকায় আসছেন dainikbanglarbani24.com
নোটিশ :
দৈনিক বাংলার বাণী নিউজ ২৪ পড়েন, বিজ্ঞাপন দিন। সত্যের সন্ধানে দুর্নীতির বিরুদ্ধে দেশ গড়ার অঙ্গিকার বদ্ধ আমরা।

অভাবে স্ত্রীর ওড়নায় লজ্জা নিবারণ, সেই ভিক্ষুক দম্পতি পেলেন সহায়তা। dainikbanglarbani24.com

  • Update Time : মঙ্গলবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ১২০ Time View

 

পিরোজপুর সংবাদদাতাঃ অর্থের অভাবে মানবিক জীবন যাপন করা পটুয়াখালীর সেই ভিক্ষুক দম্পতির পাশে দাঁড়াল উপজেলা প্রশাসনসহ কয়েকটি সংগঠন। তাদের কাছে জামা-কাপড়সহ খাদ্যসামগ্রী ও শীতবস্ত্র পৌঁছে দেয়া হয়েছে।

দুপুরে সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) লতিফা জান্নাতি ওই দম্পতির ঘরে খাবার-কাপড়সহ বিভিন্ন সহায়তা নিয়ে তাদের বাড়িতে পৌঁছান। এ সময় সদর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শাহিন আলম, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মো. হেমায়েত উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেনের পক্ষ থেকে শাড়ি-লুঙ্গি ও খাদ্যসামগ্রী পৌঁছে দেন শাহীন নামের এক ব্যক্তি।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) লতিফা জান্নাতি বলেন, ‘ওই দম্পতির বিষয়টি নজরে আসার সঙ্গে সঙ্গে তাদের সহায়তা প্রদান করা হয়েছে। তাদের জীবনমান উন্নয়নে ভাতার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। তাদের ঘরের ব্যবস্থাও করে দেয়া হবে।’

এই ভিক্ষুক দম্পতির নাম মো. সুলতান ডাক্তার (৯৫) ও সকিনা বেগম (৭০)।

প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়, যতদিন শরীরে শক্তি ছিল, কাজ করেই সংসার চালাতেন মো. সুলতান। তখন ভালোই চলছিল সুলতান-সকিনা দম্পতির সংসার। এখন বয়সের ভারে কাজ করতে পারেন না তাই অভাব হয়েছে নিত্যসঙ্গী। দুই ছেলেও খোঁজ-খবর নেন না। থাকেন অন্যের জমিতে তোলা ভাঙা ঘরে।
জোটে না দুবেলা খাবার। ভিক্ষা করে লোকের বাড়ি থেকে চেয়ে আনা পান্তা ভাত শুকিয়ে চাল হলে সেগুলো ফের রান্না করে খান। এভাবেই লোকের দ্বারে দ্বারে ভিক্ষা করে খাবার যোগাড় করেন সুলতানের স্ত্রী সকিনা বেগম।
আক্ষেপের সুরে এই বৃদ্ধ বলছিলেন, ‘দুই বেলা ভাত জোটে না, তার মধ্যে লুঙ্গি? টাকার অভাবে বৌয়ের ওড়না পরে থাকি।’
৯৫ বছরের বৃদ্ধ সুলতান এলাকায় সুলতান ডাক্তার নামে পরিচিত। পটুয়াখালী পৌরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ডের ১ম লেন বোহালগাছিয়া এলাকায় সত্তরোর্ধ্ব স্ত্রী সকিনা বেগমকে নিয়ে থাকেন তিনি।

এই দম্পতির দুই ছেলে মোস্তফা ও মোশাররফ। তারা যে যার মতো থাকেন। বাবা-মায়ের খোঁজ নেন না।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 Dainik Banglar bani 24
Customized BY NewsTheme
Design & Develop BY Our BD It